পিঠের ব্রণ দূর করার কিছু উপায়

ধাপ ১

উপকরণ

পুদিনা পাতা : পুদিন পাতায় রয়েছে মেন্থল, ব্রণ দূর করতে এবং ব্রণ থেকে হওয়া পেইন কমাতে সাহায্য করে। এটি ব্রণ শুকাতে সাহায্য করে এবং পোর ক্লিন করে। এছাড়াও এতে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট,  যা ব্যাক্টেরিয়াল ইনফেকশনের সাথে লড়াই করে। এটি  স্পট দূর করতেও হেল্প করে।
লেবুর রস : লেবুর রসে থাকা সাইট্রিক এসিড, খুবই শক্তিশালি অ্যাস্ট্রিঞ্জেন্টস হিসেবে কাজ করে, যা ব্রণ শুকাতে সাহায্য করে এবং স্পট দূর করে। এতে রয়েছে অ্যান্টি ব্যাক্টেরিয়াল এজেন্ট যা, ব্যাক্টেরিয়া দূর করে এবং ব্রণের বৃদ্ধি হ্রাস করে।

যেভাবে ব্যবহার করবেন

– পুদিনা পাতা ক্রাশ করে এর জুস বের করে নিন, যেন তা ২ চা চামচ পরিমানে হয়।
– এবার একটি বাটিতে ২ চা চামচ পুদিনা পাতার জুস এবং ২ চা চামচ লেবুর রস নিয়ে মিক্স করে নিন।
– একটি কটন বল সেই মিশ্রণে চুবিয়ে নিন এবং পিঠের যে যে অংশে ব্রণ রয়েছে সেখানে লাগিয়ে নিন।  ২০ মিনিট রেখে দিবেন। প্রতিদিন গোসলের আগে এটি করবেন।

ধাপ ২

উপকরণ

টি ট্রি অয়েল টি ট্রি অয়েলে রয়েছে অ্যান্টি ব্যাক্টেরিয়াল এবং অ্যান্টি সেফটিক প্রোপার্টি যা, ব্যাক্টেরিয়া দূর করে এবং ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে।

যেভাবে ব্যবহার করবেন

– গোসলের সময় আপনার গোসলের পানিতে ২-৩ ফোটা টি ট্রি অয়েল মিশিয়ে নিন। এটি দিয়ে গোসল সেরে নিন। তবে, এই পানি আপনার চুলে/ মাথার ত্বকে ব্যবহার করবেন না যেন।

ধাপ ৩ 

উপকরণ

অ্যালোভেরা জেল :  অ্যালোভেরা জেল এ রয়েছে অ্যাস্ট্রিঞ্জেন্টস এবং অ্যান্টি ফাংগাল প্রোপার্টি যা, ফাংগাল ইনফেকশন দূর করে। ব্রণের স্পট দূর করে,  স্কিনকে স্মুদ এবং ঠান্ডা রাখে।

যেভাবে ব্যবহার করবেন

– গোসলের পর আপনার পিঠের স্কিনকে মুছে নিন। অ্যালোভেরা জেল নিয়ে এটি এফেক্টিভ এরিয়াগুলোতে লাগিয়ে নিন। এটি ধুয়ে ফেলার কোনো প্রয়োজন নেই।
– এই ৩ টি ধাপ প্রথম এক সপ্তাহ প্রতিদিন ফলো করুন। এরপর সপ্তাহে ২ দিন করবেন।
পিঠের ব্রণ হওয়ার মূল কারণ হলো স্ট্রেস। তাই যতটা পারবেন নিজেকে স্ট্রেস মুক্ত রাখার চেষ্টা করবেন। এই তো জেনে নিলেন, কীভাবে মাত্র ৩ টি ধাপের মাধ্যমে পিঠের ব্রণ থেকে মুক্তি পাবেন। আশা করছি, এ থেকে আপনাদের উপকার হবে।