প্রতিনিয়ত ফ্যাশনে যোগ হচ্ছে নতুন মাত্রা। সকাল হোক বা রাত, গরম হোক বা শীত, যেকোনও সময় সাজের অঙ্গ হয়ে উঠছে স্কার্ফ। নারীর পাশাপাশি নির্বিশেষে স্কার্ফের ফ্যাশন মেতেছে পুরুষ ফ্যাশনিস্তারা। নিজেকে আরও বেশি আকর্ষণীয় করে তুলতে চাইলে অনায়াসেই সহায়তা করবে স্কার্ফের সম্ভার। আর স্কার্ফের রকমফেরও তো কম নয়।

পুরুষের ফ্যাশনে স্কার্ফের ব্যাবহার

পুরুষের ফ্যাশনে স্কার্ফের ব্যাবহার

পুরুষের ফ্যাশনে স্কার্ফের ব্যাবহার

প্রতিদিন অফিস যাওয়ার সময় পোশাকের সঙ্গে মানানসই স্কার্ফ বেছে নিন। বেছে নিন প্রিন্টেড স্কার্ফ। এরপর ঋতুর সঙ্গে তাল মিলিয়ে সিল্ক, কটন, উলের তৈরি যেকোনও স্কার্ফ বেছে নিতে পারেন।

সনাতনি স্টাইল মেনে যদি স্কার্ফ বেছে নিতে চান, তবে কেফিয়ে বা ডেসার্ট স্কার্ফ বেছে নিতে পারেন। এই ধরনের স্কার্ফ স্কয়্যার আকৃতির হয়। সাধারণত, আরবের দেশগুলিতে এই ধরনের স্কার্ফের প্রচলন বেশি।

সাজে যদি আভিজাত্যের রূপ আনতে চান, তবে পশমিনা স্কার্ফ বেশ উপযোগী। উত্তর ভারতে এই ধরনের স্কার্ফের প্রচলন বেশি দেখা যায়। সবসময় ব্যবহারও করা যায়, আবার কোনও অনুষ্ঠানেও।

ইউ-নেক টি-শার্ট ও স্মার্ট ব্লেজারের সঙ্গে টিউব-লাইক স্কার্ফ পরলে বেশ ভালোই দেখতে লাগে। এই ধরনের স্কার্ফ গলায় পেঁচিয়ে পরতে হয়।

পাইলটদের দেখেছেন! সবসময় সাদা রঙের স্কার্ফ জড়িয়ে রাখেন। এই ধরনের স্কার্ফকে এভিয়েটর স্কার্ফ বলা হয়। এখন বাজারে এই এভিয়েটর স্কার্ফ নানা রঙের পাওয়া যায়। ফর্মাল ড্রেস বা কোনও গুরুত্বপূর্ণ মিটিংয়ে এই ধরনের স্কার্ফ পড়তে পারেন।

শুধুমাত্র শীতকালের ব্যবহারের জন্যই একটি বিশেষ স্কার্ফ পাওয়া যায়। উলের তৈরি সেই স্কার্ফগুলির ঘনত্ব খুব বেশি হয়। শীতে যদি দু-এক পাক গলায় জড়িয়ে রাখা যায় সেই স্কার্ফ, ঠান্ডা কমানোর সহজ সমাধান।