রূপচর্চার ক্ষেত্রেও বেকিং পাউডারের রয়েছে অনেক উপকারী দিক। সাধারণত মজার খাবার তৈরিতেই বেকিং পাউডার ব্যবহার হলেও, বেকিং পাউডার আপনার রূপচর্চাতেও রাখতে পারে বড় অবদান।  চলুন জানা যাক বেকিং পাউডারের উপকারিতা সর্ম্পকে-

ফেসওয়াস হিসেবে বেকিং পাউডারঃ

১ চা চামচ হালকা কুসুম গরম পানির সাথে ২ চা চামচ বেকিং পাউডার মিলিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। মুখ পানি দিয়ে ভিজিয়ে বেকিং পাউডারের পেস্ট মেখে হালকা করে কিছুক্ষণ ম্যাসাজ করুন। দেখবেন মুখের ময়লা উঠে গিয়ে একটা ফ্রেস ভাব চলে এসেছে।

ত্বকের মৃত কোষ পরিষ্কারঃ

দৈনন্দিন ক্লিনজারের সাথে বেকিং পাউডার মিশিয়ে কিছুক্ষণ মুখে ম্যাসাজ করুন। এতে ত্বকের মরা চামড়া পরিষ্কার ভাবে উঠে আসবে। ত্বক তৈলাক্ত হলে সামান্য পানি মিশিয়ে নিতে পারেন। বেকিং পাউডার ও পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে লাগান মুখ ও গলায়। পাঁচ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। হোয়াইট হেডস ও ব্ল্যাক হেডস দূর করতেও বেকিং পাউডারের জুড়ি নেই। মিশরের রানি ক্লিওপেট্রা  স্নান সারতেন দুধ আর মধু মিশিয়ে। তার আগে বেশ করে মেখে নিতেন ‘স্ক্র্যাবার’, যা তৈরি হত মধু, বেকিং পাউডার আর ডেড সি সল্ট মিশিয়ে।

দাঁত ঝকঝকে করতেঃ

দাঁতের সাদা ভাব ফিরিয়ে আনতেও কিন্তু বেকিং পাউডার কার্যকরী। আপনার প্রতিদিনের ব্যবহারের টুথপেস্টের সঙ্গে সামান্য একটু বেকিং পাউডার মিশিয়ে নিয়ে দাঁত মাজুন। নিয়মিত ব্যবহারে দাঁত হয়ে উঠবে ঝকঝকে সাদা।

পায়ের যত্নে বেকিং পাউডারঃ

হালকা কুসুম গরম পানির সাথে বেকিং পাউডার মিশিয়ে কিছুক্ষণ পা ভিজিয়ে রাখুন। বেকিং পাউডারের পায়ের গোড়ালির মরা চামড়া তোলাসহ পায়ের ত্বককে করবে মসৃন।

রোদে পোড়া ত্বকঃ

রোদে পোড়া, কোচকানো ত্বককে কোমল ও মসৃন করতে বেকিং পাউডার অত্যন্ত কর্যকরী ভূমিকা রাখতে পারে। প্রথমে একটি পাত্রে পানির সাথে বেকিং পাউডারের মিশিয়ে নিন। পরে একটি পরিষ্কার কাপড় ওই পানিতে ভিজিয়ে তা দিয়ে হালকা ভাবে রোদে পোড়া ত্বক মুছে নিন। এতে রোদে পোড়া ত্বকে আরাম পাবেন আর ত্বকের কালো পোড়া দাগগুলো কিছু দিন পরে আর ত্বকে খুঁজে পাবেন না।

ব্রণঃ

আপনার মুখে যদি ব্রণের সমস্যা থেকে থাকে তাহলেও ভয়ের কিছু নেই। প্রথমে মুখ ভালো ভাবে পরিষ্কার করে নিন। তারপর পানি আর বেকিং পাউডারের পেস্ট মুখে মেখে ১০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। বেকিং পাউডার ব্ল্যাকহেডস পরিষ্কারেও উপকারী।

শরীরের গন্ধ দূর করতেঃ

অতিরিক্ত ঘামার ফলে শরীরের  নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করতে পারে বেকিং পাউডার। গোসলের পর সামান্য একটু বেকিং পাউডার নিয়ে বগলে লাগালে দুর্গন্ধ নিয়ন্ত্রণে থাকবে অনেকখানি।

পায়ের যত্নেঃ

হালকা কুসুম গরম পানির সাথে বেকিং পাউডার মিশিয়ে কিছুক্ষণ পা ভিজিয়ে রাখুন। বেকিং পাউডার পায়ের গোড়ালির মরা চামড়া তোলাসহ পায়ের ত্বককে করবে মসৃন। পেডিকিউর করার সময় পায়ে লাগিয়ে ফেলুন বেকিং পাউডারের পেস্ট। দশ মিনিট রেখে ঘষে ঘষে ধুয়ে ফেলুন। এরপর পেডিকিউর করলে পা হবে আরো পরিষ্কার।

আমাদের পেজে লাইক দিতে ভুলবেন না।