কথা নেই বার্তা নেই, একদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখলেন মুখ ভর্তি ব্রণ। এখন? ব্রণ হবার জন্য সবার প্রথমে দোষ পড়বে আমাদের ওপরেই, কারণ ঠিকমতো খাওয়া দাওয়া না করলে ব্রণ হয় এটা সবার ধারণা। আসলে কিন্তু ব্রণ হবার পেছনে অনেকগুলো কারণ কাজ করে। দেখে নিন এসব কারণ এবং জেনে নিন কী করলে ব্রণ দূরে থাকবে চিরকাল।

ব্রণের সমস্যায় মুখ দেখাতে পারছেন না? প্রতিকার গুলো দেখে নিন

কারণব্রণের সমস্যায় মুখ দেখাতে পারছেন না? প্রতিকার গুলো দেখে নিন– ১

মুখের কাছে যতো বেশি ফোন ধরে থাকবেন, ব্রণের উপদ্রব তত বাড়বে। ফোনের স্ক্রিনে রাজ্যের তেল আর ব্যাকটেরিয়া জমে থাকে। ফোনে গাল ঠেকিয়ে কথা বলতে বলতে আপনি টেরই পাবেন না কখন এগুলো আপনার ত্বকে লেগে যাচ্ছে, আটকে দিচ্ছে আপনার রোমকূপ, বারাচ্ছে ব্রণ।

কী করবেন?

ফোনের স্ক্রিন নিয়মিত পরিষ্কার রাখুন। এর জন্য অ্যান্টিসেপ্টিক হ্যান্ড ওয়াইপ তুলায় লাগিয়ে মুছে নিন। নয়তো ফোনের হেডফোন ব্যবহার করে কথা বলতে পারেন।

কারণ- ২

ভিটামিনের অভাবে ত্বকের স্বাস্থ্য হারায়। বিশেষ করে ভিটামিন-ডি ত্বকের জন্য খুবই দরকারি। এর অভাবে ত্বকে ইনফেকশন হতে পারে ঘন ঘন।

কী করবেন?

ভিটামিন ডি এর অভাব পূরণে সূর্যালোকের বিকল্প নেই। দিনে ২০-২৫ মিনিট হালকা রোদে থাকাটা আপনার জন্য যথেষ্ট। এর পাশাপাশি খেতে পারেন মাছের তেল, ডিম এবং দুধ।

কারণ- ৩

চিনির প্রতি দুর্বলতা। চিনি বেশি খেলে ব্রণ বেশি হয়, কারণ খাবার হজম হবার পর পরই এগুলো ত্বকের কোলাজেনের সাথে আটকে যায়, যাকে বলে “গ্লাইকেশন”। ফলে ত্বকের অবস্থা খারাপ হয়ে যায়।

কী করবেন?

চিনি এড়িয়ে চলুন যতটা সম্ভব। মিষ্টি খাবারের বদলে ফলমূল জাতীয় খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন।

কারণ- ৪

ঘুম কম হলে অবশ্যই ত্বকের ওপর তার ছাপ থাকবে। সেই সাথে বাড়বে স্ট্রেস। অনিদ্রা বা অন্য কোনো কারণে স্ট্রেস বাড়লে শরীরে কর্টিসল হরমোনের উৎপাদন বেড়ে যায়। এটি ত্বকের কোলাজেন ভেঙে ফেলে এবং ত্বক থেকে বেশি বেশি তেল বের হয়। ফলে ব্রণের উপদ্রব বাড়ে।

কী করবেন?

নিয়মিত ঘুমানোর অভ্যাস তৈরি করুন। না ঘুমিয়ে থাকাটা অনেকেরই বদভ্যাসে পরিণত হয়েছে এখন। তারা রাতের পর রাত না ঘুমিয়ে, অল্প ঘুমিয়ে, অসময়ে ঘুমিয়ে শরীরের তো বটেই ত্বকেরও বারোটা বাজাচ্ছেন। নিয়মিত ঘুমাতে স্ট্রেস কম থাকবে আর ত্বকও হয়ে উঠবে সুন্দর।

মূল:প্রিয়