মুখের ত্বকের উপর মরা কোষ, ঘাম, তেল ও ময়লা জমে। ঠিকমতো পরিষ্কার না করলে এসব কারণে ত্বকের লোমকূপের মুখ বন্ধ হয়ে ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে শুরু করে। এই অপরিচ্ছন্ন ছিদ্রতেই ব্ল্যাক হেড ও হোয়াইট হেড হয়। জানালেন আকাঙ্ক্ষা’স গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ডের রূপবিশেষজ্ঞ জুলিয়া আজাদ।

তিনি আরও জানান, সাধারণত তৈলাক্ত ত্বকে এই সমস্যা দেখা যায়। তাছাড়া শুষ্ক ত্বকের ক্ষেত্রেও এই সমস্যা হতে পারে। সাধারণত নাক ও নাকের চারপাশে গালের উপরের অংশে এবং থুতনিতে দেখা যায়। এগুলো দেখতে ছোট ছোট গোটার মতো আর মুখ হয় সাদা। চাপদিলে ছোট ছোট সাদা অথবা কালো শাঁস বের হয়।

এই সমস্যার সহজ সমাধান দিয়েছেন জুলিয়া আজাদ।

ব্ল্যাক এবং হোয়াইট হেডসের সহজ সমাধান

ব্ল্যাক এবং হোয়াইট হেডসের সহজ সমাধান

ব্ল্যাক এবং হোয়াইট হেডসের সহজ সমাধান- 

বেসন ১ চা-চামচ, মধু ১ চা-চামচ, লেবুর রস আধা চা-চামচ, চিনি ১ চা-চামচ সব একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে মুখের যে অংশে ব্ল্যাক হেডস হয়েছে সে অংশে লাগিয়ে ভেজা হাতে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ধীরে ধীরে মালিশ করতে হবে। দুতিন মিনিট পর পর্যাপ্ত পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

এই মিশ্রণ চোখের চারপাশ বাদ দিয়ে পুরো মুখেও লাগাতে পারেন।

এই প্রাকৃতিক মিশ্রণ ব্যবহার করলে ব্ল্যাক এবং হোয়াইট হেডসের সঙ্গে ত্বকের মরা কোষও পরিষ্কার হয়ে যাবে।

ব্ল্যাক হেডস ক্লিন করার পর টোনিং করতে ভুলবেন না। টোনিং না করলে লোমকূপের ছিদ্র বড় হয়ে যাবে। ভালো বিউটি পার্লারে গিয়ে ম্যাসাজ নিন। ম্যাসাজের মাধ্যমে বিশেষ পদ্ধতিতে ব্ল্যাক এবং হোয়াইট হেডস পরিষ্কার করে দেবে। সেই সঙ্গে ত্বকের অন্যান্য সমস্যাও খুব সহজে সমাধান হয়ে যাবে।