গোলাপের পাপড়ির  দিয়ে ময়েশ্চারাইজিং স্ক্রাব তৈরির পদ্ধতি

শীতকাল শেষ হয়ে যাওয়ার পর ও সে আমাদের মুখে শীতের আবরন রেখে যায়।আর তা থেকে আপনাকে মুক্তি দিতে পারে গোলাপের এই বডি স্ক্রাব। প্রাকৃতিক উপায়ে এই স্ক্রাব আপনার ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করার পাশাপাশি আপনার ত্বকে নতুন মৌসুমের জেল্লা নিয়ে আসতে সাহায্য করে। আসুন তাহলে জেনে নিন,এই স্ক্রাব তৈরির পদ্ধতি।

 

স্ক্রাব তৈরির উপায়

যা যা লাগবে

–দুই টেবিল চামচ নারিকেল তেল

– আধা টেবিল চামচ মধু

– এক টেবিল চামচ গোলাপজল

– আড়াই টেবিল চামচ চিনি

– ছোট এক জার শুকনো গোলাপের পাপড়ি

– ১/২ ফোঁটা রোজ এসেনশিয়াল অয়েল

প্রণালী

১) প্রথমে ছোট বোলে নারিকেল তেল নিন। গরম পানির ওপর বোলটি রেখে ধীরে ধীরে গলিয়ে নিন তেলটাকে। গলে যাওয়ার পর এতে দিয়ে দিন গোলাপজল এবং মধু। মেশাতে থাকুন যতক্ষণ না পুরো মিশ্রণের রঙ এক হয়ে যাবে।

২) মিশ্রণটা একটু ঠাণ্ডা হয়ে গেলে একটু একটু করে চিনি দিন এবং মেশান। এর পর  একটা খসখসে, নরম মিশ্রণ তৈরি করুন। এ সময়ে এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে নিতে পারেন।

৩) ১টা শুকনো গোলাপ নিয়ে গরম পানিতে কয়েক সেকেন্ড রেখে নরম করুন। তারপর এটাকে ছোট্ট ছোট্ট টুকরো করে মিশিয়ে দিন নারিকেল তেলের মিশ্রণে। এগুলো স্ক্রাবের শক্তি বাড়ায়।

এই রেসিপিতে আড়াই আউন্স স্ক্রাব তৈরি হবে। দুই সপ্তাহ পর্যন্ত এটা ভালোভাবে থাকবে। ইচ্ছে হলে এতে এক টেবিল চামচ আমন্ড অয়েলও মিশিয়ে নিতে পারেন মধুর পরিবর্তে।

আরও একটি উপায়ে গোলাপের পাপড়ি ব্যবহার করতে পারেন।এর জন্য আপনি নিজে গোলাপ কিনে নিতে পারেন বা টবে থাকা গোলাপ নিয়ে শুকিয়ে নিতে পারেন। এই শুকনো গোলাপের পাপড়ি গুঁড়ো করেও মিশিয়ে নিতে পারেন ২ কাপ চিনি এবং ২/৩ কাপ নারিকেল তেলের সাথে। এই স্ক্রাব আগের স্ক্রাবের চাইতে একটু বেশি গুঁড়ো হবে।

এই ২ ধরণের যে কোনো একটি স্ক্রাব করুন। এবার গোলাপের মিষ্টি সুগন্ধ ঘুরে ফিরবে আপনার আশেপাশে আসবে। তার সাথে আপনার ত্বকের ফুটিয়ে তুলবে এবং স্বাস্থ্যোজ্জ্বল দেখাবে ।